Chattogram24

Edit Template
Search
Close this search box.
শনিবার, ২রা মার্চ ২০২৪

চাঁদে ভারতীয় চন্দ্রযান-৩

Author picture
স্টাফ রিপোর্টার

চাঁদের দক্ষিণ মেরু জয় করে ইতিহাস গড়ল ভারতীয় মহাকাশযান চন্দ্রযান-৩। আজ বুধবার (২৩ আগস্ট) স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টা ০২ মিনিটে চন্দ্রযান-৩ এর ল্যান্ডার বিক্রম চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণ করে।

এর মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মতো চাঁদে মহাকাশযান অবতরণকারী দেশের তালিকায় যুক্ত হলো ভারত। যা ভারতবাসীর জন্য বিরল গর্বের বিষয়। এর আগে চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে কোনও দেশই মহাকাশযান পাঠাতে পারেনি।

ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা (ইসরো) চন্দ্রযান-৩ এর অবতরণ দৃশ্য ফেসবুক, ইউটিউবে সরাসরি সম্প্রচার করে। লাখো মানুষ এই সম্প্রচারের সাক্ষী হয়েছে। বিক্রমের অবতরণের সঙ্গে সঙ্গে বেঙ্গালুরুতে অবস্থিত ইসরোর কমান্ড কক্ষে আনন্দ-উল্লাসে ফেটে পড়েন বিজ্ঞানীরা।

ব্রিকস সম্মেলনে অংশ নিতে বর্তমানে দক্ষিণ আফ্রিকায় রয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি ভার্চ্যুয়ালি ইসরোর আয়োজনে যুক্ত হন। এ সময় জাতীয় পতাকা হাতে তাকে উচ্ছ্বসিত হতে দেখা যায়। তারপর ছোট্ট একটি ভাষণ দেন তিনি। ইসরোর বিজ্ঞানীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে নরেন্দ্র মোদি বলেন, টিম চন্দ্রযান এই মুহূর্তটির জন্য বছরের পর বছর ধরে পরিশ্রম করেছে। ১৪০ কোটি দেশবাসীকে শুভেচ্ছা। এই অর্জনে মহাকাশে নতুন ভারতের উদয় হয়েছে।

এদিকে চাঁদের মাটিতে বিক্রম অবতরণ করার পর ইসরোর পক্ষ থেকে এক্সে (পূর্বে টুইটার নামে পরিচিত) বার্তা দেওয়া হয়। তাতে চন্দ্রযান-৩-এর বয়ানে লেখা হয়েছে, ‘ভারত, আমি আমার গন্তব্যে পৌঁছে গেছি।’

এর আগে সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়ন, যুক্তরাষ্ট্র ও চীন চাঁদের বুকে সফলভাবে নভোযান অবতরণ করিয়েছে। এখন তাদের সঙ্গে চতুর্থ দেশ হিসেবে যোগ হয়েছে ভারতের নাম।

যে কারণে বেছে নেওয়া হলো ২৩ তারিখ

চাঁদে অবতরণের পর বিক্রম এবং রোভার প্রজ্ঞান তাদের কাজ সম্পাদন করতে সৌরশক্তি ব্যবহার করবে। তাই চন্দ্রযান যদি এমন সময়ে অবতরণ করে যখন চাঁদ অন্ধকারে ডুবে থাকবে, তা হলে এটি কাজ করবে না।

ফলে সূর্যের আলো থাকতে থাকতেই ল্যান্ডার এবং রোভারটি চাঁদের বুকে নামাতে চেয়েছে ইসরো। চাঁদের এক মাস হয় পৃথিবীর হিসাবে ২৮ দিনে। এক চন্দ্রমাসে টানা ১৪ দিন রাত আর ১৪ দিন দিন থাকে।

ইসরোর হিসাব অনুযায়ী, ২২ আগস্ট চাঁদে রাত শেষ হয়ে ২৩ আগস্ট থেকে টানা ১৪ দিন দক্ষিণ মেরুতে দিন থাকবে। ফলে সৌরশক্তি ব্যবহার করে নিজেদের কাজ চালাবে বিক্রম এবং প্রজ্ঞান। পাশাপাশি, ভবিষ্যতের জন্য শক্তি সঞ্চয় করে রাখবে তারা।