Chattogram24

Edit Template
Search
Close this search box.
শনিবার, ১৮ই মে ২০২৪

যাত্রীচাউনি ও গণসৌচাগার উন্মোক্ত করে দেওয়া হবে-সালেহ আহামদ

Author picture
স্টাফ রিপোর্টার

নিজস্ব প্রতিবেদক:

কোটবাজার যাত্রী চাউনি, গণসৌচাগার, গভীর নলকুপ, পুকুর ও বাজারের রাস্তা পরিদর্শনে আসেন সহকারী কমিশনার ভুমি উখিয়া সালেহ আহমদ।

জেলা পরিষদের জায়গায় সরকারি টাকায় নির্মিত যাত্রী চাউনি চিনতে না পেরে আক্ষেপ করে সহকারী কমিশনার ভুমি উখিয়া বলেন, সরকারি যাত্রী চাউনি চিনার উপায় নেই আপনারা প্রতিবাদ না করলে চোখেই পড়ত না। তিনি রিপোর্টার্স ইউনিটি উখিয়ার সভাপতি সাংবাদিক শরীফ আজাদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, কোটবাজার যাত্রী চাউনি উন্মোক্ত করে দিতে জেলা প্রশাসক মহোদয়ের কাছে চিঠি পাঠানো হবে। যদি লিজ হয়ে থাকে জনস্বার্থে যেন যাত্রী চাউনি উন্মোক্ত করা হয় সে ব্যাপারে অনুরোধ করা হবে।

এ সময় রত্নাপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল হুদা গর্ণসৌচারটি খুলে দিতে এবং গভীর নলকুপটি উদ্ধার করতে সহকারী কমিশনার ভুমি উখিয়া কে অনুরোধ করলে তিনি গণসৌচাগার খুলে দেওয়ার আশ্বাস দেন। এবং গভীর নলকুপটি উন্মোক্ত করে দেন। শান্তির পুকুর পাড়ের পাশ থেকে টেক পাড়া সড়কটি উন্মোক্ত করে দিতে চেয়ারম্যান নুরুল হুদাকে দায়ীত্ব দেন।

রত্নাপালং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আসহাব উদ্দিন মেম্বার বলেন, সকল ব্যবসায়ী ও কোটবাজার মুখি সকল ক্রেতা-বিক্রেতা নিজেদের প্রয়োজনে গণ সৌচাগার না পেয়ে মসজিদের সৌচাগারে ডুকে যাচ্ছে। এতে করে মসজিদের পবিত্রতা নষ্ট হচ্ছে। তাই গণসৌচাগারটি খুলে দিতে অনুরোধ করছি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, উখিয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাহাংগীর আলম, কোটবাজার দোকান মালিক সমিতির সভাপতি খুরশেদ আলম বাবুল সহ কোটবাজারের ব্যবসায়ী ও স্থানীয় হাজারো জনতা।